চরফ্যাসনের সাত ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন

প্রকাশিত: ৬:৩৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২১ | আপডেট: ৬:৩৭:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২১
চরফ্যাসনের সাত ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন

ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার সাত ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ভোটগ্রহণ বিকেল ৪টায় শেষ হয়। শীত উপেক্ষা করে সকাল থেকেই কেন্দ্রগুলোতে দেখা গেছে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতিও বাড়েছে। তবে কিছু কেন্দ্র মেম্বার প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে বাক-বিতন্ডার সৃষ্টি হলেও রড় ধরনের সহিংসতা ঘটেনি।

তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে সাত ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে চারজনসহ ২৫৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সাত ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১১ হাজার ৬৩৪ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫৮ হাজার ৩২৮ জন এবং নারী ভোটার ৫৩ হাজার ৩০৬ জন।

ইউনিয়নগুলো হচ্ছে ওসমানগঞ্জ, আবাদুল্লাহপুর, রসুলপুর, চর মানিকা, অধ্যক্ষ নজরুল নগর, কুকরি-মুকরি ও আবু বকরপুর ইউনিয়ন।

এ দিকে সাত ইউনিয়নের ৬৯টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ২৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। ওইসব কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা।

সাত ইউনিয়নের মধ্যে ৫টিতে নৌকার প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছে। এর ফলে সাত ইউপিতে মেম্বার (সদস্য ও সংরক্ষিত সদস্য) পদে নির্বাচন হলেও চেয়ারম্যান পদে ভোট হচ্ছে দুই ইউনিয়নে। ইউনিয়ন দুটি হলো কুকরি-মুকরি ও ওসমানগঞ্জ।

ভোটকে কেন্দ্র করে ৪ স্তরের নিরাপত্তা ছিল। মাঠে ছিল পুলিশ, আনসার, র‍্যাব ও কোস্টগার্ড সদস্যরা। এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মোবাইল টিম, স্টাইকিং ফোর্স নিয়োজিত ছিলেন।

চরফ্যাসন উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সকাল থেকেই ভোটারদের উপস্থিতি সন্তোষজনক। বেলা বাড়ায় ভোটার বাড়েছে। কেন্দ্রগুলোতে পুরুষের পাশাপাশি নারী ভোটারদের উপস্থিতিও চোখে পড়ার মতো। এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রতীকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সুশৃঙ্খলভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।’